• ২০১৯ সালে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন বাংলাদেশি হজ পালন করতে পারবেন


    ডেস্ক নিউজ : সৌদি আরব সফররত বাংলাদেশের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আনিছুর রহমান জানিয়েছেন, ২০১৯ সালের (১৪৪০ হিজরি) বাংলাদেশ-সৌদি আরব দ্বিপাক্ষিক হজ চুক্তি গতকাল জেদ্দায় সম্পাদিত হয়েছে। চুক্তি অনুসারে এ বছর বাংলাদেশের জন্য কোটা নির্ধারিত হয়েছে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার জন হজে যেতে পারবেন।

    চুক্তি সম্পাদন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পক্ষের নেতৃত্ব প্রদান করেন ধর্মসচিব মোঃ আনিছুর রহমান এবং সৌদি পক্ষের নেতৃত্ব প্রদান করেন সৌদি হজ ও ওমরাহ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ড. আবদুল ফাত্তাহ বিন সোলায়মান মাশাত।

    ধর্মসচিব মোঃ আনিছুর রহমান আরো জানান, চুক্তি অনুষ্ঠানকালে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ওআইসি’র নীতিমালা অনুসারে বাংলাদেশের মোট মুসলিম জনগোষ্ঠীর অনুপাত অনুসারে ১ লাখ ৪৬ হাজার জনের সুযোগ প্রদানের অনুরোধ করা হয়। সৌদি কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে বাংলাদেশের ধর্মমন্ত্রীর মাধ্যমে আবেদন করার পরামর্শ প্রদান করেন।

    দ্বিপাক্ষিক চুক্তি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের হজযাত্রীদের জন্য মিনায় অবস্থানকালে উন্নতমানের বাংলাদেশি খাবার পরিবেশন; ট্রেন সার্ভিসের সুবিধা আরো বেশি সংখ্যক বাংলাদেশি হজযাত্রীকে প্রদান; বাংলাদেশ বিমান ও সৌদি এয়ারলাইনসের বাইরে অন্যান্য এয়ারলাইনসকে হজযাত্রী পরিবহনের অনুমতি প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হয়। এ ছাড়া মিনার তাবুতে দ্বিতল/তেতল খাটের বিষয়ে বাংলাদেশি হজযাত্রীদের অসুবিধার কথা তুলে ধরা হয়। এ বিষয়গুলো আরো যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

    বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বেসরকারি হজ এজেন্সি প্রতি হজযাত্রীর সংখ্যা ন্যূনতম ১০০ করার প্রস্তাব করা হয়। সৌদি আরবের পক্ষ থেকে এজেন্সিভিত্তিক পারফরমেন্স যাচাই সাপেক্ষে প্রস্তাব গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করা হয়।

    চুক্তি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে ও সৌদি আরবের পক্ষে হজ ব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

    Spread the love
    Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial