• শুরু হলো বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প


    স্পোর্টস রিপোর্টার : ম্যারাথন ও সাইক্লিং প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শুরু হলো বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প ২০১৯।

    যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ব্যবস্থাপনায় ও স্পেলবাউন্ড লিও বানেট এর সহযোগিতায় প্রথমবারের মত সারাদেশের সকল সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ প্রতিযোগিতা।

    রাজধানীর হাতিরঝিলের এফ্লিথিয়েটারে শুক্রবার সকালে ম্যারাথন ও সাইক্লিং প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মাসব্যাপী এ প্রতিযোগিতার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ত্ব করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল।

    উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘স্কুল করেজের ছাত্র-ছাত্রীরা পর্যাপ্ত খেলাধুলায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাচ্ছে না বলেই ভুল পথে পরিচ লিত হচ্ছে। ঝুঁকে পড়ছে মাদকের দিকে। সেই দিক থেকে বিবেচনা করলে এই টুর্নামেন্টের প্রতিপাদ্য বিষয়টি যথার্থই। এই প্রজন্মকে মাদকের কালো থাবা থেকে দূরে রাখতে হলে খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই। বেশী বেশী করে এরকম প্রতিযোগিতা আয়োজনের উদ্যোগ নিতে হবে। তারুণ্যই হচ্ছে আগামী বাংলাদেশ গড়ে তোলার কান্ডারী। তাই তাদের পথভ্রস্ট হতে দেয়া যাবে না। তারুণ্য জেগে উঠলে বাংলাদেশ জেগে উঠবে।’

    প্রতিবছর নিয়মিতভাবে প্রতিযোগিতাটি আয়োজন করার জন্য আয়োজকদের প্রতি আহ্বান জানান আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

    অনুষ্ঠানের সভাপতি এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ‘বাংলাদেশে এই প্রথম সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহনে এমন টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছে। এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীক সবচেয়ে বড় ইভেন্ট।

    ক্রীড়াবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছেন। দেশ থেকে মাদক নিয়ন্ত্রনে জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ইতোমধ্যে দেশ থেকে জঙ্গীবাদ অনেকটাই নির্মূল হয়েছে। খেলাধুলার মাধ্যমে এখন যুব সমাজকে মাদকের আসক্তি থেকে দূরে রাখতে হবে।’

    উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেস যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. মো. জাফরউদ্দীন, স্পেলবাউন্ড লিও বানেট এর ব্যবস্থাপনরা পরিচালক ও সিইও মোহাম্মদ সাদেকুল আরেফীন ও পৃষ্ঠপোষক পোলার আইসক্রিমের মার্কেটিং ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল মামুন।

    অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। এরপর মশাল জালিয়ে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।উদ্বোধনী দিনের প্রথম ইভেন্ট পুরুষদের ম্যারাথনে প্রথম হয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মো. মাহফুজুল হক, দ্বিতীয় হয়েছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মো. আল আমিন এবং ৩য় হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মো. আবুল কাশেম।

    মেয়েদের ম্যারাথনে প্রথম হয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের তামান্না আকৃতি, দ্বিতীয় হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হামিদা আক্তার এবং তৃতীয় হয়েছেন একই বিশ্ববিধ্যালয়ের সাদিয়া ইসলাম মোনা। ছেলেদের সাইক্লিংয়ে প্রথম হয়েছেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির হাফিজ উদ্দিন, দ্বিতীয় হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মো. সাইফুল ইসলাম রাসেল এবং তৃতীয় হয়েছেন বাংলাদেশ ইউনির্ভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজির ছাত্র পলাশ রায়।

    মেয়েদের সাইক্লিংয়ে প্রথম হয়েছেন জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্বা বিশ্বাস এবং দ্বিতীয় ও তৃতীয় হয়েছেন যথাক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লিপি আক্তার ও হামিদা আক্তার জেবা।

    চ্যাম্পিয়নশীপের ১০টি ডিসিপ্লিনে ৬৫টি পাবলিক ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সাড়ে তিন হাজার শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। ডিসিপ্লিনগুলো হচ্ছে ক্রিকেট, ফুটবল, হ্যান্ডবল, সুইমিং, সাইক্লিং, ভলিবল, সাঁতার, অ্যাথলেটিক্স, টেবিল টেনিস ও বাস্কেটবল। প্রতিটি ডিসিপ্লিনের জাতীয় ফেডারেশনের এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়া বিভাগের কর্মকর্তারা আজকের এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

    উল্লেখ্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে ‘বঙ্গবন্ধুর চেতনায় গড়ি মাদকমুক্ত বাংলাদেশ’- প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ প্রতিযোগিতা

    Spread the love
    Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial