• প্রথমবারের মত ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ


    ছবি : সংগৃহিত

    স্পোর্টস ডেস্ক : আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হলো বাংলাদেশ। গতরাতে টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ দল। ফাইনাল ম্যাচ জয়ের জন্য বৃষ্টি আইনে ২৪ ওভারে ২১০ রানের বড় টার্গেট তাড়া করে সৌম্য-মোসাদ্দেকের বিধ্বংসী ব্যাটিং-এ ৭ বল বাকী রেখেই জয়ের স্বাদ নেয় টাইগাররা। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে এই প্রথমবারের মত ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিতলো বাংলাদেশ।

    ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

    ডাবলিনে অনুষ্ঠিত ৫০ ওভারের ম্যাচের ফাইনালে টস হেরে প্রথমে ফিল্ডিং বেছে নেয় বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে নেমে ২০ দশমিক ১ ওভারে বিনা উইকেটে ১৩১ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এরপর বৃষ্টির কারনে বন্ধ হয়ে যায় খেলা। বৃষ্টির কারনে দীর্ঘক্ষণ খেলা বন্ধ থাকায় শেষ পর্যন্ত ফাইনাল ম্যাচটি ২৪ ওভারে নামিয়ে আনা হয়।

    ২৪ ওভারে ১ উইকেটে ১৫২ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ওপেনার শাই হোপ ৭৪ রান করেন। বাংলাদেশের স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজের বলে আউট হন। আরেক ওপেনার সুনীল অ্যামব্রিস ৬৯ ও ড্যারেন ব্রাভো ৩ রানে অপরাজিত থাকেন। ৪ ওভারে ২২ রানে ১ উইকেট নেন বাংলাদেশের মিরাজ।

    বৃষ্টি আইনে ২৪ ওভারে জয়ের জন্য ২১০ রানের টার্গেট নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশের টাইগাররা। ষষ্ঠ ওভারের তৃতীয় বলে তামিমকে থামিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রথম সাফল্য এনে দেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার শানন গ্যাব্রিয়েল। ১৩ বলে ১৮ রান করেন তামিম। পরে ২ বল মোকাবেলা করে শুন্য হাতে ফিরেন সাব্বির। ৯টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৪১ বলে ৬৬ রান করেন সৌম্য। এরপর দলের হাল ধরেন মুশফিক ও মোহাম্মদ মিথুন। মুশফিক ২২ বলে ৩৬ ও ১৪ বলে ১৭ রানে আউট হয়ে যান মিথুন। ১৫ দশমিক ৪ ওভারে দলীয় ১৪৩ রানে পঞ্চম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এমন পরিস্থিতিতে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও মোসাদ্দেক দলের হাল ধরেন। ২২তম ওভারে বিধ্বংসী রূপ নেন মোসাদ্দেক। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাঁ-হাতি স্পিনার ফ্যাবিয়ান অ্যালেনের করা ঐ ওভার থেকে ২৫ রান তুলে মাত্র ২০ বলে নিজের হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন মোসাদ্দেক। বাংলাদেশের পক্ষে যা সবচেয়ে ‌দ্রুত হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড।

    শেষ ২ ওভারে ২ রানের প্রয়োজন পড়লে ২৩তম ওভারের পঞ্চম বলে বাউন্ডারি মেরে দলকে লক্ষ্যে পৌঁছে দেন মাহমুদুুল্লাহ। শিরোপা জয়ের আনন্দে মেতে ওঠে বাংলাদেশ। মোসাদ্দেক ২টি চার ও ৫টি ছক্কায় ২৪ বলে অপরাজিত ৫২ ও মাহমুদুল্লাহ ২১ বলে অপরাজিত ১৯ রান করেন।

    ওয়েস্ট ইন্ডিজের গ্যাব্রিয়েল-রেইফার ২টি করে উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন বাংলাদেশের মোসাদ্দেক। সিরিজ সেরা হন ওয়েস্ট ইন্ডিজের শাই হোপ।

     

    Spread the love
    Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial