• দেশে প্রয়োজনের তুলনায় প্রায় ৩৫ লক্ষ টন অতিরিক্ত আলু উৎপাদন হচ্ছে


    গাজীপুর প্রতিনিধি : দেশে বর্তমানে প্রয়োজনের তুলনায় ৩০-৩৫ লক্ষ টন অতিরিক্ত আলু উৎপাদন হচ্ছে। রবিবার বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) এ আলু ও মিষ্টি আলুর র‌্যালি ও খাদ্যমেলা উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. আবুল কালাম আযাদ এ তথ্য জানান।

    ড. আবুল কালাম আযাদ বলেন, দেশে বর্তমানে প্রয়োজনের তুলনায় ৩০-৩৫ লক্ষ টন অতিরিক্ত আলু উৎপাদন হচ্ছে। আলুর বহুবিধ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি দেশে পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে আলুর পাশাপাশি কমলা/রঙ্গিন শাঁসযুক্ত মিষ্টি আলু দিয়ে বিভিন্ন প্রকার খাদ্য তৈরী করে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এছাড়া প্রক্রিয়াজাতকরণের মাধ্যমে কমলা বা শাঁসযুক্ত মিষ্টি আলুর বিভিন্ন প্রকার খাদ্য তৈরির মাধ্যমে সারা বছর ভিটামিন-এ এর প্রাপ্যতা নিশ্চিতকরণের উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

    বারি’র কন্দাল ফসল গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক ড. এ কে এম শামছুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ইনস্টিটিউটের পরিচালক (গবেষণা) ড. মো. আব্দুল ওহাব, পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও যোগাযোগ) জেবুন নেছা, পরিচালক (পরিকল্পনা ও মূল্যায়ন) ড. বাবু লাল নাগ, পরিচালক (উদ্যানতত্ত¡ গবেষণা কেন্দ্র) ড. আবেদা খাতুন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া প্রদর্শনের মাধ্যমে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কন্দাল ফসল গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও প্রকল্পটির পরিচালক ড. হরিদাস চন্দ্র মোহন্ত।

    এর আগে কন্দাল ফসল গবেষণা কেন্দ্র কর্তৃক পরিচালিত ‘উদ্ভাবিত আলু ও ভিটামিন সমৃদ্ধ মিষ্টি আলুর নতুন জাতসমূহের প্রজনন বীজ উৎপাদনে প্রদর্শনীর মাধ্যমে সমস্যা চিহ্নিতকরণ ও গবেষণা ভিত্তিক কর্মসূচি’ প্রকল্পের আওতায় আলু ও কমলা শাঁসযুক্ত মিষ্টি আলুর বহুমুখী ব্যবহার উদ্বুদ্ধকরণের লক্ষ্যে র‌্যালি ও খাদ্য মেলা অনুষ্ঠিত হয়। ইনস্টিটিউটের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে বারি মহাপরিচালক ড. আবুল কালাম আযাদের নেতৃত্বে র‌্যালিটি বের হয়। পরে বারি মহাপরিচালকের নেতৃত্বে অতিথিবৃন্দ ইনস্টিটিউটের সেমিনার কক্ষের সামনে অনুষ্ঠিত আলু ও মিষ্টি আলু দিয়ে তৈরী বিভিন্ন প্রকার খাবারের খাদ্য মেলার স্টলসমূহ পরিদর্শন করেন।

    Spread the love
    Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial