• ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ রূপগঞ্জের ওসি মাহমুদুল


    ডেস্ক নিউজ : বাংলাদেশ পুলিশ এখন সাধারণ মানুষের কাছে একটি আস্থার নাম। এই পুলিশ বাহিনীর কর্তাব্যক্তিগণ দীর্ঘদিন ধরে পুলিশ বাহিনীর গৌরবময় ইতিহাস ধরে রাখতে পুলিশ বাহিনীতে যোগ্য বিনয়ী, কর্মদক্ষতা, নিষ্ঠাবান অফিসারদের দিয়ে থাকেন শ্রেষ্ঠ পুলিশ অফিসার পদক ও সম্মাননা। এর ধারাবাহিকতায় এবার যে কয়জন শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হয়েছেন তাদের মধ্যে সবচেয়ে কম বয়সি, মেধাবী, সদা হাস্যোজ্জল, পুলিশিং যার একমাত্র কাজ, সাধারণ মানুষের আস্থার নাম মাহমুদুল হাসান। তিনি হলেন নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ। তিনি ঢাকা রেঞ্জ ও নারায়নগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার নির্বাচিত হন।

    গত ২২ মে সন্ধ্যায় ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি কার্যালয়ে তাকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ গ্রেফতার ও রূপগঞ্জ থানা এলাকার আইনশৃংখরা উন্নয়নের ফলে মাহমুদুল হাসান সেরা অফিসার নির্বাচিত হন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন, এডিশনাল ডিআইজি মো: আসাদুজ্জামান, নারায়নগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

    মাহমুদুল হাসান ২০০৫ সালে বাংলাদেশ পুলিশে সাব ইন্সপেক্টর হিসেবে যোগদান করেন। এরই মধ্যে তিনি তার পুলিশ জীবনে এক বর্ণাঢ্য সফলতার সাফল্য গাঁথা পুলিশ অফিসার হিসেবে নিজেকে তৈরি করেছেন। তার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি আমার বাকি জীবন এই ধারাবাহিকতা নিয়ে চলতে চাই। পুলিশ হিসেবে সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে চাই। একমাত্র বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী পারে সকল মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে থাকতে। আমি যতদিন আছি কোন সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী রূপগঞ্জ থানার মাটিতে মাথাচাড়া দিয়ে দাঁড়াতে পারবে না। সাফল্যের মধ্যে অনেক ঘটনা আছে তবে সন্ত্রাসী ইমুকে গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধার করতে গেলে প্রকাশ্যে পুলিশের উপর গুলি ছোড়ে ইমো বাহিনী, গ্রেপ্তার হয় পরে ক্রসফায়ারে নিহত হয়। ২০১৫ সাল থেকে ২০১৯ পর্যন্ত গাজীপুর সদর থানা অর্থাৎ জয়দেবপুর থানায় একাধিক মামলা রহস্য উদঘাটন করি, অনেক মাদক ব্যবসায়ীদের জেলহাজতে পাঠানো থেকে গত জাতীয় নির্বাচন সর্বাধিক সুষ্ঠু ও সুন্দর করার লক্ষ্যে নিজেকে নিয়োজিত করি এবং জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে হয়। এ বছরের ৩০ মার্চ রূপগঞ্জ থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পায় মাহমুদুল হাসান। পুলিশ বাহিনীতে শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হওয়ার জন্য ৮ থেকে ১০ টি বিষয়ে গুরুত্ব পায় তা হলো – মামলা নিষ্পত্তি, অজ্ঞাত হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন, গ্যাং রেপ মামলার আসামি গ্রেপ্তার রহস্য উদঘাটন সহকার্যবিধির ১৬৪ ধারা জবানবন্দি আদায়, আসামি গ্রেপ্তার ওয়ারেন্ট তামিল এ রুল বি রুল ইস্যুকরণ, মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও আসামি গ্রেপ্তারসহ তার মূল উৎপাটন করি।

    তিনি আরো বলেন, গত ১ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত এক মাসে ৩১ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের মাদকদ্রব্য উদ্ধার সহ ১৫০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করে। সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ গ্রেপ্তারসহ রূপগঞ্জ থানা এলাকার আইন-শৃঙ্খলা উন্নয়নের ফলে তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা ও ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করে। নিয়মানুবর্তিতা, নিরাপত্তা ও সাফল্য এই তিনটি বিষয় মাথায় নিয়ে পুলিশ বাহিনীতে কাজ করে যাবেন বলে জানান ইন্সপেক্টর মাহমুদুল হাসান।

    Spread the love
    Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial