• কাপাসিয়ায় সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন নার্সিং কলেজের কার্যক্রম উদ্বোধন


    গাজীপুর প্রতিনিধি : যুক্তফ্রন্টের সভা করা প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সভা করা গণতান্ত্রিক অধিকার। তারা শান্তিপূর্ণভাবে সভা করুক, তাদের কথা তারা বলুক আমরা চাই। আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি বলেই তাদের সভা করতে দিয়েছি। কিন্তু ওনার সময় কিন্তু আমরা সভা শান্তিপূর্ণভাবে সভা করতে পারিনি।

    যুক্তফ্রন্টের সাত দফা দাবী ও আন্দোলন প্রসঙ্গে ১৪ দলের মুখপাত্র বলেন, এটা অর্থহীন, অকার্যকর একটা আন্দোলন। নির্বাচন এখন ঘরের মধ্যে এসে গেছে। নির্বাচনের ঢামাঢোল বেঁজে গেছে, আবার কিসের আন্দোলন? এখন একটাই আন্দোলন সেটা নির্বাচনের আন্দোলন, ভোট দেয়ার আন্দোলন।

    মন্ত্রী বিএনপি’র আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেয়া প্রসঙ্গে বলেন, তারা নির্বাচনে আসুক, নির্বাচন না করলে তারা বাংলাদেশের জনগণের কাছ থেকে হারিয়ে যাবে।

    স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম শনিবার বিকেলে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাঙ্গনে সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন নার্সিং কলেজ-এর নব নির্মিত ভবন ও এর কার্যক্রম উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন।

    গাজীপুর-৪ (কাপাসিয়া) আসনের সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবার কল্যান বিভাগের চিকিৎসা শিক্ষা অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব বদরুন নেছা, নার্সিং ও মিডওয়াইফারী অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তন্দ্রা শিকদার, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম এ মোহী, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর ও পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান লস্কর মিঠু, কাপাসিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসমত আরা, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আব্দুস সালাম সরকার, কাপাসিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: সাখাওয়াত হোসেন প্রধান প্রমূখ।

    পরে স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম নার্সিং কলেজ এর নব নির্মিত ভবন ও এর কার্যক্রম উদ্বোধন করেন এবং পরিদর্শন করেন।

    নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ মধুসুদন চক্রবর্তী বলেন, এ ইনস্টিটিউটে প্রতি শিক্ষাবর্ষে একশ’ ২০টি আসন সংরক্ষিত রয়েছে। একজন অধ্যক্ষসহ মোট পাঁচ জন শিক্ষক পাঠদান কার্যক্রমে যুক্ত রয়েছেন। ২২ কোটি ৩৩ লাখ ২ হাজার টাকা ব্যয়ে কলেজটি নির্মাণ করা হয়। ২০০১ সাল থেকে এটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ভবন সম্প্রসারণ কাজ এখনও চলছে।

    Spread the love