আগামী বিজয় দিবসের আগেই যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত বিল সংসদে পাস করা হবে : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

গাজীপুর প্রতিনিধি : মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন, যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্তের জন্য ইতোমধ্যে মহান জাতীয় সংসদে সর্বসম্মতি ক্রমে বিল পাস হয়েছে। এটাকে আইনে পরিণত করার জন্য আইনমন্ত্রীকে সংসদে বিল উত্থাপন করতে হবে। এটির প্রক্রিয়া চলমান, আমরা আশা করি আগামী অধিবেশনে যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্তের বিলটি আইনে পরিণত হবে। ইনশাল্লাহ আগামী বিজয় দিবসের আগেই আশা করছি এ আইন সংসদে সর্বসম্মতি ক্রমে পাস হবে।

তিনি মঙ্গলবার বিকেলে গাজীপুরের সফিপুরে স্থানীয় আওয়ামীলীগ আয়োজিত গণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাছিম কবীরের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ, কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন সিকদার। ভারত সফরে সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে অনুষ্ঠানে মন্ত্রীকে বিভিন্ন সংগঠন ও সংস্থার পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।




আহসান উল্লাহ মাস্টারের নামে টঙ্গী হাসপাতালের নামকরণের দাবীতে মানববন্ধন

টঙ্গী প্রতিনিধি : টঙ্গীর ২৫০শয্যা বিশিষ্ট নবনির্মিত সরকারি হাসপাতাল শ্রমিকনেতা গাজীপুরের প্রয়াত সংসদ সদস্য আহসান উল্লাহ মাস্টারের নামে নামকরণের দাবীতে টঙ্গী ও গাজীপুরের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনসমূহ, বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সর্বস্তরের মানুষ মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচী পালন করছে। ইতিমধ্যে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের নামে হাসপাতালটি নামকরণের জন্য সহস্রাধিক গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট হস্তান্তর করেছে।

এদিকে মঙ্গলবার টঙ্গী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। টঙ্গী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ মোল্লার পরিচালনায় মানববন্ধন কর্মসূচীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন ব্যানার, ফেস্টুন, প্লেকার্ড হাতে নিয়ে টঙ্গী স্টেশন রোড থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে কয়েক কিলোমিটার রাস্তায় মানববন্ধন করে। এসময় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সফিক, মানববন্ধন উদযাপন কমিটির আহবায়ক রুহুল আমিন মনির সরকার, টঙ্গী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহবায়ক নূর মোহাম্মদ মামুন, এস এম আনোয়ার হোসেন, জয় সরকার, শফিকুল ইসলাম স্বপন, সাইদুল ইসলাম লস্কর, সাইদুল হক লিটন প্রধান, পলাশ মাহমুদ, আব্দুর রশিদ ভূঁইয়া, মোয়াজ্জেম হোসেন প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গাজীপুরের জনপ্রিয় সংসদ সদস্য ও মেহনতি শ্রমিক জনতার প্রিয় মানুষ আহসান উল্লাহ মাস্টারকে তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে সন্ত্রাসীরা দিনদুপুরে জনসভার মঞ্চে গুলি করে হত্যা করে, আহসান উল্লাহ মাস্টার এমপি মেহনতি শ্রমিক জনতার দাবী আদায়ে সোচ্চার কন্ঠ ছিলেন। তাই মেহনতি মানুষের প্রিয় মানুষ আহসান উল্লাহ মাস্টারের নামে টঙ্গীতে নবনির্মিত হাসপাতালটি নামকরণ করতে হবে। এসময় বক্তারা আগামী ২৪ এপ্রিল টঙ্গীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একই দাবীতে অনশন ধর্মঘট পালন করার ঘোষণা দেন।

উল্লেখ্য, আগামী ৩০ এপ্রিল টঙ্গীতে নবনির্মিত ২৫০শয্যা বিশিষ্ট সরকারি হাসপাতালটি উদ্বোধনের কথা রয়েছে।




কুড়িগ্রামে বিদ্যালয়ের শিশুদের মাঝে উচ্চ পুষ্টি গুণ সমৃদ্ধ মিষ্টি আলুর চারা বিতরন

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামে উচ্চ পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ কমলা শাঁসযুক্ত মিষ্টি আলুর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির লক্ষে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুদের মিষ্টি আলুর চারা বিতরন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে সদর উপজেলার নাগদহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সাসটেইন প্রজেক্ট ও আর্ন্তজাতিক আলু কেন্দ্রের অর্থায়নে এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহায়তায় এসব চারা বিতরন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার স্বপন কুমার রায় চৌধুরী, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কাজল কুমার সরকার, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো: নজরুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক সাজেদা বেগম ও কৃষিবিদ মো: মহিদুল হাসান মানিক প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের শিশুর মায়েদেরকে এই অধিক পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ কমলা শাঁসযুক্ত মিষ্টি আলুর গুনাগুন সর্ম্পকে অবহিত করা ও বাড়িতে চাষ করার জন্য উব্দুদ্ধ করা হয়।

কমলা শাঁসযুক্ত মিষ্টি আলুর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এর আগে বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের উচ্চ পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ মিষ্টি আলু খাওয়ানোর পাশাপাশি ২ কেজি করে মিষ্টি আলু বিতরন করা হয়েছে।




সাভারে ১০ টাকা কেজি দরে চাউল বিতরণ শুরু

সাভার প্রতিনিধি : হতদরিদ্রদের জন্য খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় সাভারে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে সাভারের হেমায়েতপুর বাসষ্ট্যান্ডে তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর ১গ টা কেজি দরে চাউল বিক্রির এই কর্মসুচির উদ্বোধন করেন ।

শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ এই শ্লোগানে নির্ধারিত কার্ডের মাধ্যমে ১০ টাকা কেজি দরে প্রতিমাসে ৩০ কেজি করে চাল পাবেন হতদরিদ্ররা। আজ তেঁতুলঝোড়া এলাকার প্রায় ১০০ জনের মাঝে এ চাউল বিতরণ করা হয়।
ইউপি চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর এসময় বলেন, আমি নিজে থেকে উপস্থিত হয়ে ডিলারের মাধ্যমে এ চাউল বিতরণ করেছি। যাতে যেন কোন অনিয়ম না হয়।

চাউল কর্মসুচী উদ্বোধনের সমময় এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সায়েম মোল্ল্যা, সাভার উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির আহমেদসহ আরো অনেকে।




মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনা সভা

গাজীপুর প্রতিনিধি : ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ উ›মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্রের উদ্যোগে গাজীপুর ক্যাম্পাসের সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার বিকেলে ‘ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা’ এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম এ মাননান আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন। উপাচার্য তাঁর বক্তব্যে বলেন, ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলায় বাংলাদেশের প্রথম সরকারের শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে সারা বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের কাছে মুজিবনগর হয়ে ওঠে বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রতীক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে স্বাধীন বাংলাদেশের রূপকার ছিলেন। সভাপতির ভাষণে উপাচার্য আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জাতির কাছে তুলে ধরার জন্য শত্রæর বিরুদ্ধে প্রয়োজনে আরও একটি যুদ্ধের জন্য প্রস্তুুত থাকতে হবে।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার এম আমীর-উল-ইসলাম প্রধান আলোচক হিসেবে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। তিনি ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের ঘটনাবহুল স্মৃতিচারণ করে বলেন, সেদিন মুজিবনগরে স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে সাংবিধানিকভাবে রাজনৈতিক বৈধতা নিয়ে রাষ্ট্রের ও সরকারের পরিচিতিতে মহান মুক্তি সংগ্রামে বিশ্ব জনমত আরও বেড়ে ওঠে। তিনি আরও বলেন, মুজিবনগর সরকার স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র অনুযায়ী গঠিত হয়।

‘৭১-এর এপ্রিলের ১৭ তারিখে প্রতিষ্ঠিত স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারের প্রধানতম লক্ষ্য ছিল সাংবিধানিকভাবে রাজনৈতিক বৈধতা নিশ্চিত করে মুক্তিযুদ্ধ তথা জনযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশকে শত্রæমুক্ত করে সুমহান বিজয় ছিনিয়ে আনা। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে মুজিবনগর দিবসের গুরুত্ব তাই অপরিসীম। ব্যারিস্টার এম আমীর-উল-ইসলাম সভায় উপস্থিত সকলকে নিয়ে দেশের সংবিধান অনুসারে প্রজাতন্ত্রের নাগরিক হিসেবে শপথ পাঠ করান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. আবুল হোসাইন আহমেদ ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. আশফাক হোসেনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন।