• ব্রেকিংনিউজ: তাপদাহে আবারো গাজীপুরে পোশাক কারখানার চার শতাধিক শ্রমিক অসুস্থ্য     ::     মুক্তিযুদ্ধে কবি নজরুলের গান ও কবিতা ছিল প্রেরণার উৎস : ধর্মমন্ত্রী     ::     সরকারের দেয়া জমির দখল না পাওয়ায় কুড়িগ্রামে ১৪৯ রিফুজি পরিবারের মানবেতর জীবনযাপন     ::     আসন্ন ঈদে বিআরটিসি’র নয়শত বাস প্রস্তুত     ::     জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সরকারি কর্মসূচি     ::    
    Uddar 18_05_16

    সৌদি আরবে পাচার হওয়া সাভারের এক তরুণী আড়াই মাস পর উদ্ধার


    image_print

    সাভার প্রতিনিধি : সাভার থেকে সৌদি আরবে পাচার হওয়ার আড়াই মাস পরে এক তরুণীকে উদ্ধার করে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

    গতকাল বিকেলে সৌদি আরবে বাংলাদেশ দুতাবাসের সাহায্যে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমানের উদ্যোগে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। পাচার হওয়া ওই তরুণীর সাভার পৌর এলাকার বেদেপল্লীর এক কৃষকের মেয়ে।

    পাচার হওয়া ওই তরুণীর পরিবারের সদস্যরা জানান, গত ৬ ফেব্রুয়ারি রাতে সাভারের নিজ বাসা থেকে সৌদি আরবে একটি গার্মেন্টে কাজ দেওয়ার কথা বলে তাকে সৌদি আরবে নিয়ে যায় ঢাকার বিল্লাল নামের এক দালাল।  পরে ওই তরুণীকে গার্মেন্টে কাজ না দিয়ে সৌদি আরবের হায়েল নাসিম নামের এক শহরে খালেদ এর বাড়িতে দেড় লাখ টাকার বিনিময়ে বিক্রি করে দেন ওই দালাল।  পরে ওই বাড়ির লোকজন ওই তরুণীকে সাংসরিক (ঝিয়ের) কাজ না করায় ওই তরুণীকে প্রায় মারধর করতো ও একটি রুমের মধ্যে আটকিয়ে রাখতো।  ওই তরুণী কৌশলে সাভারের ওমরপুরে টেলিফোনে তার বাবাকে পাচার হওয়ার বিষয়টি জানান। তার বাবা ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমানকে বিষয়টি জানায়। পরে সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাসের সাহায্যে গতকাল বিকেল তিনটার দিকে ওই তরুণীকে ফিরিয়ে এনে পরিবারের কাছে হসান্তর করে ঢাকা জেলা পুলিশ। পাচার হওয়ার আড়াই মাস পরে ওই তরুণীকে উদ্ধার করায় পুলিশের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ওই তরুণীর পরিবারের সদস্যরা।  এদিকে এঘটনার পর থেকে বিল্লাল নামের ওই দালাল পুলিশি গ্রেপ্তারের ভয়ে গা ঢাকা দিয়েছে।

    এবিষয়ে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান জানান, সৌদি আরবে বাংলাদেশ দুতাবাসের সাহায্যে ওই তরুণীকে দির্ঘ দুই মাসের চেষ্টায় গতকাল বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।  পরে তাকে পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় ওই দালালের বিরুদ্ধে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।