• ব্রেকিংনিউজ: তাজরীন গার্মেন্ট ট্রেজেডির পাঁচ বছর পূর্তি আজ     ::     কালিয়াকৈরে ট্রেন-ট্রাক সংঘর্ষে ট্রেনের সহকারী চালক নিহত, ৬ ঘন্টা পর ট্রেন চলাচল শুরু     ::     ইতিহাস মুছে ফেলার চেষ্টা করলেও তা মুছে ফেলা যায় না : প্রধানমন্ত্রী     ::     জাতীয় পর্যায়ে এবারও সেরা কর দাতার সম্মাণনা পেলো ওয়ালটন     ::    
    07_01_2017-MB-BGB

    শ্রীমঙ্গলে বিজিবির হামলার প্রতিবাদে ব্যবসায়ী সমিতির ধর্মঘট প্রত্যাহার


    image_pdfimage_print

    মো: জহিরুল ইসলাম, মৌলভীবাজার : মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিজিবির সদস্যর সাথে এক পরিবহন শ্রমিকের কথা কাটাকাটির জের ধরে কিছু বিজিবি সদস্য ও পরিবহন শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। তখন উভয় পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলার সময় বেশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং শতাধিক গাড়ী ভাংচুর ও পথচারী চলাচলকারীদের উপরে নির্বিচারে গুলি চালায় এতে পথচারী ও ব্যবসায়ীসহ বিজিবির গুলিতে গুলিবৃদ্ধ হয় ৬ জন এবং আহত হয় অনেকে।

    বিজিবির গুলিতে গুলিবিদ্ধরা বর্তমানে সিলেট, মৌলভীবাজার, শ্রীমঙ্গলের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন। গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে শ্রীমঙ্গল পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন শ্রীমঙ্গলে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয়। পরে পরিবহন নেতারা শনিবার ভোর থেকে আজ রবিবার পর্যন্ত জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন পরিবহন ধর্মঘট আহবান করে।

    শনিবার বিকেল ৩ টায় শ্রীমঙ্গল চৌমহনা চত্ত্বরে শ্রীমঙ্গল পৌর মেয়র মহসিন মিয়ার সভাপতিত্বে পথসভাতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আব্দুস শহীদ এমপি। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান রণধীর কুমার দেব, উপজেলা আওয়ামলীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা এম এ মান্নান, পৌর আওয়ামলীগের সাধারণ সম্পাদক অর্ধেন্দু কুমার দেব, ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো: লুৎফুর রহমান সহ প্রমুখ।

    এসময় ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো: লুৎফুর রহমান বলেন, বিজিবির উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা আমাদের ব্যবসায়ীদের ক্ষতিপূরণের দাবী মেনে নিয়েছেন, আর যে সকল বিজিবির সদস্যরা আমাদের নিরাপরাধ ব্যবসায়ীদের দোকানে হামলা ও গুলি চালিয়েছে ঐসকল বিজিবি সদস্যদের আইনের আওয়ার আনার আশ্বাস দিয়েছেন বিজিবির হেড কোয়াটার। আমরা আগামী শনিবার পর্যন্ত ব্যবসায়ী সমিতির ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছি। আমাদের ব্যবসায়ীদের ক্ষতিপুরণ না দিলে আমারা আগামী রবিবার থেকে ধর্মঘটের আহব্বান করবো।

    এদিককে আব্দুস শহীদ এমপি বলেন, যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত তাদের আইনের আওয়াতায় আনতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বিচারের জন্য বিজিবিকে নির্দেশ দিয়েছেন। আপনাদের ক্ষয়ক্ষতির পূরণ দিতে বিজিবি আশ্বাস দিয়েছেন। যারা অপরাধ করেছে তাদের অনেক কে ক্লোজ করা হয়েছে এবং তাই আপনারা ব্যবসায়ী সমিতির ও পরিবহন শ্রমিক উইনিয়নের ধর্মঘট প্রত্যাহারের জন্য আহব্বান করেন।

    মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে বিজিবি ও পরিবহন শ্রীমঙ্গল সংঘর্ষের ঘটনায় সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন এর ডাকে শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে ২য় দিনের সকাল ৬টা থেকে জেলায় অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ডাক দিয়ে ছিল পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন। সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন বিক্ষোভকারীরা ছোট-বড় পরিবহন এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে রাস্থায় খন্ড খন্ড মিছিল বের দুই দিন ব্যাপী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে শহরের বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।

    শুত্রæবার রাতে স্থানীয় এমপি আব্দুস শহীদ, বিজিবির উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা, মৌলভীবাজার জেলা প্রসাশক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ বিটিআরআই তে বৈঠক করে বিজিবির কর্মকর্তারা সকলে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেন এবং দোষী বিজিবি সদস্যদের বিচারের জন্য তদন্ত উচ্চ পর্যায়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

    পরিবহন শ্রমিকদের উপর হামলার বিচার এবং বেপোরোয়াভাবে গাড়ী ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুরে ক্ষতি পূরনের দাবীতে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন ধর্মঘট পালন করেছে শনিবার বিকাল পর্যন্ত। সকাল থেকে জেলায় সকল ধরনের পরিবহন বন্ধ রেখেছেন শ্রমিকরা। এছাড়া শহর থেকে দূর পাল­ার কোন যানবাহন ছেড়ে যায়নি। ঘন কুয়াশার জন্য রাস্তায় সাধারন মানুষ কম থাকলেও ধমর্ঘটের কারণে কর্মজীবি মানুষ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা চমর ভোগান্তিতে পড়েন।