• ব্রেকিংনিউজ: ইসির অধিনেই নির্বাচন, শেখ হাসিনা সরকার সহায়ক : ওবায়দুল কাদের     ::     বাঙালি জাতির প্রতিটি মহৎ, শুভ ও কল্যাণকর অর্জনে আওয়ামী লীগের ভূমিকা রয়েছে : শেখ হাসিনা     ::     ঈদে ওয়ালটন ফ্রিজ, টিভি, হোম অ্যাপ্লায়েন্সেস বিক্রির ধুম     ::     জিসিসি মেয়রের চেয়ারে অধ্যাপক এম এ মান্নান     ::    
    Chomki mp p

    নারীর উন্নয়নে বৈশ্বিক তহবিল গঠন করতে হবে : মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী


    image_print

    স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশের মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেছেন টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে নারী ও যুবকদের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে।  নারী বৈশ্বিক জনসংখ্যার অর্ধেক, তাই নারীকে বাদ দিয়ে টেকসই উন্নয়ন অর্জন সম্ভব নয়।  নারীর উন্নয়নে বৈশ্বিক তহবিল গঠনের প্রতি তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

    তিনি সোমবার কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে বৈদেশিক সহযোগিতাকে কার্যকর করার জন্য গ্লোবাল পার্টনারশিপ ফর ইফেক্টিভ ডেভলপমেন্ট কো-অপারেশন (জিপিইডিসি)-এর দ্বিতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনের সময় এ কথা বলেন।

    প্রতিমন্ত্রী বলেন, যুবকরা আগামী দিনের নেতা এবং বৈশ্বিক উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে যুবকরা চ্যাম্পিয়নের ভূমিকা পালন করতে পারে।  তিনি নারী ও যুব উন্নয়নে বাংলাদেশের উলে­খযোগ্য অবদান তুলে ধরেন।  তিনি বলেন, সাংবিধানিকভাবে বাংলাদেশের নারীরা সম-অধিকার ও সম-মর্যাদার অধিকারী এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশ নারীর অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে একটি মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।  তিনি বলেন, বাংলাদেশের নারীরা বাংলাদেশ অর্থনৈতিক উন্নয়নে নেতৃত্ব দিচ্ছে।  তৈরি পোশাক খাতে ৩০ লক্ষের অধিক নারী নিবেদিতভাবে কাজ করছে। তিনি বলেন, নারীর উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হলে সরকারের আন্তরিক নীতি সমর্থনসহ বিভিন্ন অংশীজনের সহযোগিতা জরুরি। তিনি বলেন বাংলাদেশ সরকার নারী ও যুবকসহ সকলের উন্নয়নের জন্য অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নয়ন মডেল বাস্তবায়ন করছে। তবে তিনি বলেন বিশ্বব্যাপী নারীরা বিভিন্ন ধরনের অনানুষ্ঠানিক বৈষম্যে শিকার হন, যা নিরসনে আমাদের সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।

    এ সম্মেলন ১ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখ পর্যন্ত চলবে।  এ সম্মেলনে অংশগ্রহনকারী বাংলাদেশের অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, প্রাক্তন আইন ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আব্দুল মতিন খসরু এমপি, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মেজবাহউদ্দিন, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ড. শামসুল আলম, কেনিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল আবুল কালাম মোহাম্মদ হুমায়ুন করীর, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মনোয়ার আহমেদ, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সাহিন আহমেদ চৌধুরী।

    বৈদেশিক সহযোগিতার কার্যকর ব্যবহার ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০১১ সালে জিপিইডিসি প্রতিষ্ঠিত হয় এবং ২০১৪ সালে মেক্সিকো-তে জিপিইডিসি’র প্রথম উচ্চ পর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হয়। উলে­খ্য, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সিনিয়র সচিব জিপিইডিসি’র স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

    জিপিইডিসি ও কেনিয়া সরকারের যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আজকের প্রথম দিনের উদ্বোধনী সেশনে আন্তজার্তিক যুব ও নারী ফোরাম অনুষ্ঠিত হয়।  এ ফোরামে বাংলাদেশের মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন এবং এ সেশনে সভাপত্বি করেন কেনিয়ার নারী বিষযক মন্ত্রী সিসিলি কারুকি।

    নারীর সমানাধিকার নিশ্চিতকরণে বিদ্যমান চ্যালেঞ্জ সংক্রান্ত অপর একটি প্যানেলে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করে মাহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সাহিন আহমেদ চৌধুরী বলেন, বৈশ্বিক পর্যায়ে জিপিউডিসিকে কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ নারীর ক্ষমতায়নে কার্যকর ভূমিকা পালন করছে। তবে, জাতীয় কার্যক্রমকে এগিয়ে নেয়ার জন্য আন্তর্জাতিক সহায়তা প্রয়োজন।