• ব্রেকিংনিউজ: চলে গেলেন ওয়ালটন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এস এম নজরুল ইসলাম     ::     বিনম্র শ্রদ্ধায় মহান বিজয় দিবস পালন     ::     গাজীপুরে মহান বিজয় দিবস উদযাপিত     ::     আজ মহান বিজয় দিবস     ::     বাজারে ওয়ালটনের ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি এখন হট কেক     ::    
    Savar-chatal

    ধামরাইয়ে আমন ধান কাটার উৎসবে চাতাল শ্রমিকদের কর্মচঞ্চলতা ফিরেছে


    image_pdfimage_print

    সাভার প্রতিনিধি : আমন ধান কাটার উৎসবে ঢাকার ধামরাইয়ে চাতালগুলোতে শ্রমিকদের কর্মচঞ্চল ফিরে এসেছে। এ এলাকার চাতাল শ্রমিকদের বড় একটা অংশ নারী শ্রমিক। যারা বেশীরভাগ স্বামী পরিত্যক্তা। চাতালে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন তারা। নতুন ধান ওঠায় ধানের চাতালগুলো আবার কর্মচঞ্চল হয়ে উঠেছে। এ জেলায় প্রায় ৪২টি ধানের চাতাল রয়েছে। চাতালগুলোতে প্রায় কয়েক হাজার শ্রমিক কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

    এলাকাবাসী জানায়, ঢাকার ধামরাইয়ের বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ৪২টি ধানের চাতাল রয়েছে। চাতালগুলোতে নতুন ধান উঠেছে। দিন রাত নারী শ্রমিকদের পাশাপাশি পুরুষ শ্রমিকরা কাজ করছে। চাতালগুলোতে ধান সিদ্ধ হচ্ছে রাতে আর দিনে সিদ্ধ ধান শুকিয়ে তা রাইস মিলগুলোতে ভাঙ্গিয়ে ব্যাপারাীদের কাছে চাউল বিক্রি করে দিচ্ছে চাতাল মালিকরা। এ জেলায় চাতালগুলোতে নারী শ্রমিকদের পাশাপাশি পুরুষ শ্রমিকরা কাজ করে স্বাবলম্বী হচ্ছে। চাতালে কাজ করে শ্রমিকরা ছেলে মেয়েদের পড়াশুনার পাশাপাশি সংসারেও আয় উন্নতি করছে। চাতাল শ্রমিকরা জানিয়েছে চাতালগুলোতে নতুন ধান উঠায় তারা দিনে ও রাতে কাজ করে বাড়তি টাকাও কামাচ্ছেন।

    চাতাল মালিকরা জানিয়েছে, চাতাল গুলোতে নতুন ধান উঠায় তারা চাউলের ভালো মুল্য পাচ্ছে। পাশাপাশি চাতালগুলোতে তারা নারী ও পুরুষ শ্রমিকদের কর্মচঞ্চল সৃষ্টি করেছে। এ জেলায় প্রায় ৪২টি চাতালে কয়েক হাজার শ্রমিক কাজ করছে। সরকারের আরেকটু সহযোগীতা পেলে এ জেলায় ব্যবসায়ীরা আরো চাতাল করে বেকার শ্রমিকদের কর্মচঞ্চল সৃষ্টি করতে পারবে বরে মনে করেন তারা।

    এবিষয়ে ঢাকার ধামরাই উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, চলতি আমন মৌসুমে এ উপজেলায় সাত হাজার ৬৫ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ হয়েছিল। ধানের ভালো ফলন হয়েছে। জেলায় ধান কাটা শেষ হয়েছে। এখন ধান চাতালগুলোতে সিদ্ধ করে শুকিয়ে চাউল ভেঙ্গে বিক্রি করে লাভবান হচ্ছেন চাতাল মালিকরা।

    চাতাল মালিকদের সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরণের সহযোগীতার আশ্বাস দিয়েছেন ধামরাই উপজেলা কৃষি অফিসার লুৎফর রহমান শিকদার।

    সরকারের আরেকটু সহযোগীতা পেলে এ জেলায় আরও নতুন করে চাতাল গড়ে উঠবে বলে মনে করেন এখানকার ব্যবসায়ীরা।