ঢাবি রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট নির্বাচনে এমএ আজিজের বিজয়ে ময়মনসিংহে উচ্ছ্বাস

image_pdfimage_print

আনিসুর রহমান ফারুক, ময়মনসিংহ : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)সিনেটে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট নির্বাচনে বিজয়মাল্য পরেছেন ময়মনসিংহের কৃতি সন্তান অধ্যাপক ডাঃ এমএ আজিজ।স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের কেন্দ্রীয় মহাসচিব পেয়েছেন দশ হাজার ৫১২ভোট।এবারের এ রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা। ২৫টি আসনের ২৪টিতেই তারা জয়ী হয়েছে।

স্বাচিপ মহাসচিব এ পদে নির্বাচিত হয়েই গণতান্ত্রিক ঐক্য পরিষদের নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জনে সাফল্য রেখেছে।অধ্যাপক ডাঃ এমএ আজিজ স্বাধীন বাঙালীর স্হপতি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ছাএলীগের সভাপতি থেকেও জেলা পর্যায়ে ছাএলীগ ও আওয়ামীলীগকে সুসংগঠিত করতে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

ওয়ান ইলেভেনে দলের দুঃসময়ে বর্তমান প্রধানমন্তী শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি।অতি গুরুত্বপূর্ণ ও মর্যাদাপূর্ণ সিনেট নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ময়মনসিংহের একজন প্রতিনিধি নির্বাচিত হওয়ায় চিকিৎসক, সুশীলসমাজ,রাজনীতিকসহ সব মহলে উচ্ছ্বাস-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে।অধ্যাপক ডাঃ এমএ আজিজ চিকিৎসক সমাজের এ নেতাকে ঘিরে অনুসারীরা নতুন স্বপ্ন বুনছেন।

ঢাবি সিনেটে ঐতিহাসিক বিজয় অর্জনে স্বাচিপ মহাসচিব এ প্রতিনিধিকে বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখায় হবে আমার প্রথম কাজ।এ কাজে ঢাবির উপার্চায্যকে সব ধরনের সহায়তা করা হবে।এ বিজয় শেখ হাসিনার বিজয়।বৃহত্তর ময়মনসিংহের প্রতিনিধি অধ্যাপক ডাঃ এমএ আজিজ রেকর্ড ভোট পেয়ে এ পদে বিজয়ী হয়েছেন।একক ভাবে তাকে রেকর্ড ভোট প্রদানে তিনি সংশ্লিষ্ট ভোটারদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও মোবারাকবাদ জানিয়েছেন।ভোটারদের ভালবাসাকে সম্বল করে সামনের দিনগুলোতে এগিয়ে যেতে চান দেশ বরেণ্য এ চিকিংসক নেতা।

এর আগে ঢাকার বাইরের বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে একাধিক দিন ভোটগ্রহণের পর রবিবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন শুরু হয় গণনা।

বিকাল পৌন ৫টায় ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালনকারী উপ-উপাচার্য অধ্যাপক নাসরীন আহমাদ।

এবার স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ তিনটি প্যানেলে মোট ৮০ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এর মধ্য থেকে ২৫ জনকে সিনেট সদস্য হিসেবে বেছে নেন ভোটাররা।

এবার ভোটার ছিলেন ৪৩ হাজার ৯৯৭ জন রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট; তার মধ্যে ২২ হাজার ৬৪২ জন ভোট দিয়েছেন।

শেয়া করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *