• টেকসই নির্মাণ কাজ করার জন্য প্রশিক্ষিত শ্রমিক ও প্রকৌশলী প্রয়োজন : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী


    গাজীপুর প্রতিনিধি : স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম বলেছেন, টেকসই নির্মাণ কাজ করার জন্য প্রশিক্ষিত শ্রমিক ও প্রকৌশলী প্রয়োজন। প্রকৌশলীরা যদিও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লেখাপড়া করে আসেন কিন্তু আমাদের যারা শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন তাদের কোন রকম প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ থাকে না। সে কারণে তারা গুণগতমান নিয়ন্ত্রণ করা এবং কাজের পরিমাণ বেশি করা তাদের পক্ষে অনেক সময় সম্ভব হয়ে উঠেনা। এ বিষয়টিকে চিহ্নিত করে এলজিইডির একটি প্রশিক্ষণ ইউনিট করা হচ্ছে। সে প্রশিক্ষণ ইউনিটে সাধারণ লোকদের বিশেষ করে রাজমিস্ত্রি ও রড মিস্ত্রিসহ নির্মাণ কাজের সঙ্গে যুক্তদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। প্রশিক্ষণ শেষে তাদের যে সার্টিফিকেট দেয়া হবে সে সার্টিফিকেট দিয়ে বাংলাদেশে এবং দেশের বাইরে কর্মসংস্থানের সুযোগ পাবে।

    তিনি মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের গজারিয়াপাড়া এলাকায় নির্মাণ দক্ষতা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

    অনুষ্ঠানে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মেজবাহ উদ্দিন, গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জামিল আহমেদ, এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ খান, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোসলেহ উদ্দিন ও লুৎফর রহমান, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার মোঃ জাকির হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) আফরোজা আক্তার রেবা, গাজীপুর এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল বারেক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

    সকালে মন্ত্রী গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের অন্তত ৮টি ওয়ার্ডের নির্মানাধিন অনেকগুলো রাস্তা পরিদর্শন করেন। নগরীতে একসঙ্গে অনেকগুলো উন্নয়ন কাজ চলছে। এরকম জনপ্রতিনিধিদের দায়িত্ব পালনের প্রতি যে আন্তরিকতা এটা অত্যন্ত প্রশংসনীয় এবং এটা অব্যাহত থাকতে হবে। এ জন্য তিনি গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমকে তার কাজের জন্য ধন্যবাদ জানান।

    মন্ত্রী বলেন, এলজিইডিকে বাংলাদেশে কম ব্যয়ে অধিক কাজ করার দায়িত্বটি বেশী গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। লোকস্ট ব্রীজ ও লো কস্ট রাস্তা করা হয়েছে। এক সময় আমাদের আর্থিক অবস্থা খারাপ ছিল সে কারণে এটা করা হলেও আমি মন্ত্রী হওয়ার পরে এ বিষয়টা চিহ্নিত করেছি। টেকসই রাস্তা করার জন্য আমরা ইস্টিমিট ও ডিজাইনগুলোকে পরিবর্তন করেছি। এখন থেকে আমাদের গুণগতমান সম্পন্ন করার জন্য নির্দেশনা দেয়া আছে। সকল প্রকৌশলীরাও এ ব্যাপারে অত্যন্ত আন্তরিক।

    কোন ঠিকাদার যদি সঠিকভাবে কাজ করে তাহলে তাকে আগামিতে আরো বর্ধিত কাজ দেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি। তাদের প্রশংসিত ও উৎসাহিত করা হবে। যারা গুনগত মান খারাপ করবে এবং সঠিক সময়ে কাজ করবেন না তাদেরকে শুধু কালো তালিকাভ‚ক্তিই নয় তাদের বিরুদ্ধে যতরকম আইনানুগ ব্যবস্থা আছে সেগুলো নেয়া হবে।

     

    Spread the love