• জিএমপির নতুন কমিশনার খন্দকার লুৎফুল কবিরের যোগদান


    গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) নতুন কমিশনার হিসেবে মঙ্গলবার যোগ দিয়েছেন খন্দকার লুৎফুল কবির পিপিএম (সেবা)। এসময় তার সহকর্মীরা তাঁকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এর আগে তিনি ২০১৯ সালের ১১ এপ্রিল থেকে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

    গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি উত্তর) জাকির হাসান জানান, গত ১৬ সেপ্টেম্বর খন্দকার লুৎফুল কবিরকে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের নতুন কমিশনার হিসেবে পদায়ন করা হয়। তখন তিনি খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। মঙ্গলবার গাজীপুরে যোগদানের পরে তিনি সহকর্মীদের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত মতবিনিময় করেন। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো: আজাদ মিয়া, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) কে এম আরিফুল হক ও উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ শরিফুর রহমান (ক্রাইম) প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

    এদিকে গত ৩১ আগস্ট গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. আনোয়ার হোসেনকে চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) পদে পদায়ন করা হয়।

    পুলিশ কমিশনার খন্দকার লুৎফুল কবির ১৫তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে ১৯৯৫ সালের ১৫ নভেম্বর সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন।

    খন্দকার লুৎফুল কবির ১৯৬৯ সালের ১লা জানুয়ারি নরসিংদী জেলার সদর উপজেলার পশ্চিম কান্দাপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মৃত খন্দকার হুমায়ুন কবির এবং মাতা লুৎফা বেগম। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত এবং দুই কন্যা সন্তানের জনক।

    নরসিংদী পাইলট হাইস্কুল ও নরসিংদী সরকারী কলেজ থেকে যথাক্রমে ১৯৮৩ ও ১৯৮৫ সালে এসএসসি ও এইচএসসি পাশ করার পরে তিনি ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশ এগ্রিকালচারাল ইউনিভার্সিটি থেকে এগ্রিকালচারাল ইকোনমিক্স বিষয়ে উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ সম্পন্ন করেন। বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি সারদা থেকে মৌলিক প্রশিক্ষণ এবং জেলায় বাস্তব প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষে তিনি এএসপি (হেডকোয়ার্টার) হিসেবে হবিগঞ্জ জেলায় যোগদান করেন। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত সুদীর্ঘ ২৫ বছরের কর্মজীবনে তিনি খাগড়াছড়ি, লক্ষীপুর, নারায়নগঞ্জ, নেত্রকোণা, কুমিল্লা, ঝালকাঠি জেলা, পুলিশ স্টাফ কলেজ, ডিআইজি, এপিবিএন এর কার্যালয়, ঢাকা, ডিএমপি’র মিরপুর ও গুলশান বিভাগ, র‌্যাব, অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট ও কেএমপি, খুলনাতে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে অত্যন্ত সুনামের সাথে চাকরি করেছেন। তিনি ঝালকাঠি, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা ও নোয়াখালী জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে মোট প্রায় চার বছর দক্ষতার সাথে চাকরি করেন। তিনি ডিএমপি-তে ডিসি, মিরপুর হিসেবে ২০০৯-২০১০ সালে কর্মরত ছিলেন। তাঁর কর্মজীবনের অন্যতম হলো ডিসি, গুলশান হিসেবে কর্মকাল; তিনি ২০১১-২০১৫ সাল পর্যন্ত প্রায় পাঁচ বছর গুলশানের মত অতি গুরুত্বপূর্ণ ও সংবেদনশীল বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

    এছাড়া পুলিশ কমিশনার খন্দকার লুৎফুল কবির ২০০২-২০০৩ সময়কালে কসোভোতে UNMIK এবং ২০১০-২০১১ মেয়াদে দক্ষিণ সুদানে UNMISS জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের আওতায় মানবতার সেবায় কাজ করেন। তিনি দেশে বিপিএ, সারদা-তে মৌলিক প্রশিক্ষণ, বিপিএটিসিতে বুনিয়াদি প্রশিক্ষণসহ সিআইডি, স্পেশাল ব্র্যাঞ্চ ও পুলিশ স্টাফ কলেজ, ঢাকা-তে Aid to Good Investigation Course, Comprehensive Intelligence Course ও Senior Management Course-সহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ লাভ করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্র থেকে ২০০৭ সালে Senior Management Course ও ২০১৪ সালে International Crime  and Global Security Project কোর্সে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন এবং ২০১৮ সালে US Bangla  Bilateral Counter Terrorism Conference এ যোগদান করেন। ২০১৩ সালে তিনি American International University-Bangldesh (AIUB) থেকে এমবিএ ডিগ্রি লাভ করেন। ধারাবাহিক ভালো কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ খন্দকার লুৎফুল কবির প্রেসিডেন্ট’স পুলিশ মেডেল (পিপিএম সেবা) সম্মাননা এবং আইজিপি’স ব্যাজ পুরস্কারপ্রাপ্ত হন।

    Spread the love