• গাজীপুর সিটিতে প্রবেশ ও বের হওয়ায় কড়াকড়ি জিএমপির


    গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো: আনোয়ার হোসেন বলেছেন, আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে ইতিমধ্যেই সরকারীভাবে সার্কুলার দেয়া হয়েছে যে, যে যেখানে আছে সেখানেই তারা ঈদ উদযাপন করবে। শহর থেকে কেউ গ্রামে যাবে না, গ্রাম থেকে কেউ শহরের দিকে আসবে না। চলমান প্রেক্ষাপটে যদি শহর থেকে মানুষ গ্রামের দিকে যায় তাহলে গ্রামেও করোনাভাইরাসের সংক্রমন আরো বৃদ্ধি পেতে পারে। এই আশংকা থেকেই এই নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

    তিনি বলেন, ঈদুল ফিতরের দিন ঈদের জামাত ঈদগা, মাঠে বা উন্মুক্ত স্থানে বা খোলা জায়গায় না পড়ার জন্য সকল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের অনুরোধ করা হয়েছে। তাদেরকে মসজিদে ঈদের জামাত আদায় করার জন্য বলা হয়েছে এবং প্রয়োজনে প্রত্যেকটা মসজিদে একাধিক জামাত করে সকল মুসুল্লিরা নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে তারা ঈদের জামাত আদায় করবে। সেই ব্যাপারে সকলের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

    তিনি বুধবার সকালে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর থানায় পরিবহন শ্রমিকদের ঈদ উপহার প্রদান অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। এ সময় গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) মোহাম্মদ শরিফুর রহমান, সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার সোহরাব হোসাইন, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আলমগীর ভূঞা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

    কমিশনার বলেন, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে মহানগরীর প্রত্যেকটা প্রবেশ পথে চেকপোস্ট স্থাপন করেছি এবং কার্যক্রম জোড়দার করেছি। ঈদ উপলক্ষে গাজীপুর শহর থেকে কেউ যেন বাইরে যেতে না পারে এবং বাইরের কেউ যেন গাজীপুর শহরে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য আমরা কড়াকড়ি আরোপ করেছি। এ জন্য প্রতিটি চেকপোষ্টে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

    তিনি আরো বলেন, শুধুমাত্র পণ্যবাহী যানবাহন ছাড়া মানুষ নিয়ে চলাচল করে এমন কোন যানবাহন বেরুতেও দিচ্ছি না আমাদের এখানে ঢুকতেও দিচ্ছি না। এটা এখন না শুধু ঈদ পর্যন্ত এবং ঈদ পরবর্তী সময়ও আমরা এটা অব্যাহত রাখব।

    Spread the love
    Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial